About Me

Tourist's moon travel planing system is organized by various organization in 2024

Tourist's moon travel planing system is organized by various organization in 2024/পর্যটকদের চাঁদ ভ্রমণের ব্যাবস্থার পরিকল্পনা বিভিন্ন সংস্থার 2024 এর মধ্যে ।

tourists moon travel in2024
tourists moon travel

 চাঁদে মানুষ নিয়ে যাওয়ার পরিকল্পনা করেছে বিশ্বের সবচেয়ে বৃহৎ ই -কমার্স কোম্পানি আমাজানের প্রধান নির্বাহী জেফ বেজোস। বিশেষ একটি চন্দ্রাযান-এ করে ২০২৪ সাল নাগাদ পর্যটক নিয়ে যাওয়া শুরু করবে চন্দ্রপৃষ্টে তাঁর প্রতিষ্ঠান ব্লু-অরিজিন। গবেষক বা মহাকাশ অভিযাত্রী হিসাবে নয় ,শুধু মাত্র ভ্রমণের উদ্দেশ্যে মানুষ চাঁদে যেতে পারবে। বিশ্বের সব থেকে ধোনি ব্যাক্তি জেফ বেজোস আগামী ৫ বছরের মধ্যে এমন কার্যক্রম চালু করতে চলেছে। এই কারণে আমাজনের প্রতিষ্ঠাতা অনেক আগেই 'ব্লু অরিজিন ' নাম একটি কোম্পানি খুলেছে। যুক্তরাষ্ট্রের ওয়াসিংটন ডিসিএর এক বিশেষ অনুষ্ঠানে কোম্পানির ভবিষ্যাৎ পরিকল্পনা তুলে ধরেন জেফ বেজোস। যে চন্দ্র যান -এ করে চন্দ্র পৃষ্ঠে মানুষ নামাতে চান তার একটি নমুনা করেন দর্শকদের সামনে সম্ভাব্য গ্রাহক ,নাসার বিজ্ঞানী ,গণমাধমকর্মী সহ ,যার নাম দেয়া হয়েছে 'ব্লু মুন। '

মানুষের ব্রেন কত GB হয়। 

চন্দ্র যানের আকার কেমন হবে

এই চন্দ্র যানটির আকার হবে দুইতলা বাড়ির সমান ,যা বৈজ্ঞানিক যন্ত্র-পাতি ও স্যাটেলাইট সহ চন্দ্রপৃষ্ঠে চলাচল করতে পারবে এমন সব যান বাহনও বাহন করতে পারবে। সঙ্গে থাকবে চার থেকে পাঁচ জন যাত্রী। চন্দ্রযানটি দেখিয়ে দর্শকদের উদ্দেশে বেজোস বলেন "এখন সময় হয়েছে চাঁদে ফিরে যাওয়ার এবং বসবাস শুরু করার। "পুনরায় ব্যবহার যোগ্য একটি  রকেটে করে চন্দ্রযানটি পাঠানো হতে পারে। মহাকাশ পর্যটন ব্লু মুন প্রকল্পটিকে মূলত একটি বৃহৎ পরিকল্পনার প্রথম পরিকল্পনার প্রথম পদক্ষেপ বলে মত্ দিয়েছেন বেজোস।

ইলেকট্রিক গাড়ি নির্মাতা টেসলার প্রতিষ্টাতা এলন মাস্কও মহাকাশ পর্যটনের পরিকল্পনা শুরু করেছে। তার প্রতিষ্ঠান স্পেস এক্স ইতিমধ্যে পুনর্বাবহারযোগ্য রকেট উদ্ভাবন করেছে। যার মাধ্যমে বেশ কয়েকটি সফল অভিযান পরিচালনা করা হয়েছে।

ভার্জিন গ্রুপের প্রতিষ্টাতা রিচার্ড ব্রেনসনও মহাকাশকেন্দ্রিক পর্যটন ব্যাবসার জন্য একটি কোম্পানি চালু করেছেন। চলতি বছরে তাদের উদ্ভাবিত স্পেসশীপটি মহাকাশে পাড়ি দেওয়ার কথা আছে।

ট্রাম্প প্রশাসনও আগামী ৫ বছরের মধ্যে চাঁদে যাতাআতের জন্য অবকাঠামো গড়ে তোলার পরিকল্পনা নির্ধারণ করেছেন। ভাইস প্রেসিডেন্ট মাইক পেন্স ২০২৪ সাল নাগাদ চাঁদের কক্ষপথে একটি স্পেস প্লাটফর্ম গড়ে তোলার কথা ঘোষণা করেছেন।

মানুষের চোখ সবচেয়ে বৃহৎ ক্যামেরা। 

হোয়াইটহাউস কি চায় ? 

হোয়াইটহাউস চায় যে করেই হোক ২০২৪ সল্ নাগাদ আমেরিকার নভোচারীরা যাতে চাঁদের দক্ষিণ গোলার্ধে অবতরণ করতে পারে। কারণ চাঁদের এই অংশটিতে জল বরফ অবস্থায় রয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে,যা থেকে রকেটের জন্য প্রয়জনীয় জ্বালানির যোগান নিশ্চিত করা ও নভোচারীদের পানের জল যোগান দেওয়া সম্ভব হতে পারে বলে মনে করছে নাসার বিজ্ঞানীরা। 

Post a Comment

0 Comments